সবিতা হালাপ্পানাভার --- নাম টা আপনাদের কাছে শোনা শোনা মনে হচ্ছে ? হ্যাঁ , ঠিক ই ধরেছেন । এই সেই হাস্যময়ী সুন্দর তরতাজা মেয়েটি যাকে অকালে চলে যেতে  হল । সে তো যেতে চায় নি , তবুও হল । কার দোষে ? আপনারাই বলুন । সে সন্তানের জন্ম দিতে চলেছিল কিন্তু হল না । আইরিশ আইনে গর্ভপাত নিষিদ্ধ । সবিতা সখ করে গর্ভপাত চায় নি কারণ সে নিজেই ডাক্তার । তার প্রান সংশয় হওয়াতে বারংবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও তা হয় নি , ফল তার অকালে চলে যাওয়া । এ সব খবর আপনারা ইতিমধ্যেই জেনে গিয়েছেন ।


যে প্রশ্ন আমায় ভাবাচ্ছে , যে ভ্রূণের স্পন্দন পাওয়া যাচ্ছিল তা বন্ধ করতে চায় নি ডাক্তাররা । যে ভ্রূণ পৃথিবীর আলো দেখল না , যার অস্তিত্ব মায়ের জঠরে তার জন্য ডাক্তারদের এত চিন্তা কিন্তু যে মেয়েটির অস্তিত্ব পৃথিবীতে  রয়েছে এবং বিষক্রিয়ায় যে যন্ত্রণা পাচ্ছে আর তার থেকে মুক্তির প্রার্থনা করছে সেখানে ডাক্তারদের কোন ভাবান্তর নেই । তাদের সামনেই একটা প্রান চলে গেল । সেখানে ধর্মের দোহাই । সাবিতা যদি বেঁচে যেত আবারও সুস্থ সন্তানের জন্ম দিত । সে নিজে যেহেতু ডাক্তার আমরা সাধারন মানুষও উপকৃত হতাম ।

 

মানবিকতা আজ কোথায় এসে  দাঁড়িয়েছে ? মানুষের জন্য আইন না কি আইনের প্যাঁচে মানুষ ?  কোন ধর্মেই এতবড় অধর্মের কথা লেখা থাকে আমি বিশ্বাস করি না, আর এটাও জানি আপনারাও আমারই মতন বিশ্বাস করেন না । তবুও ঘটল , আবারও ঘটবে ।

আজ সবিতা একটা বড় প্রশ্ন চিহ্নর সামনে আমাদের দাঁড় করিয়ে দিয়ে গেছে । আর কতদিন , আর কতদিন এমন আইনের জাঁতাকলে পড়ে আর কত সবিতাকে প্রান দিতে হবে ?

ভাববেন বন্ধুরা ।