তোমার জন্ম,আমার জন্মরে ষোল বছর আগে । তোমার জন্মরে ইতিহাস- তোমার শৈশবের আদিঅন্ত- তোমার কৈশোরের উচ্ছ্বলতা আমি দেখিনি, শুনেছি তোমার তারুণ্যে আমার আগমন হলে ও বোঝার বয়স আমার তখনও হয়নি যখন আমি বুঝতে শিখেছি তখন তোমার দুরন্ত র্দুবার যৌবন। ঠিক সেই থেকে প্রতিনিয়ত আমি তোমার বিরোধী! হে আমার প্রিয় স্বাধীনতা! অথচ তুমি আসবে বলে সকল স্বপ্ন সাধ জলাজ্ঞলি দিয়ে নিজেকে উৎর্সগ করছেলি আমার অগ্রজ ত্রিশ লক্ষ বাংলাদেশী। তোমার জন্ম যাতে আনন্দঘন নিষ্কন্টক হয় তার জন্যে নারীত্বের সবচেয়ে বড় সম্পদ হারিয়েছিল দুই লক্ষ বোন আর মা। তাদের লাশ আর সম্ভ্রমের বিনিময়ে তুমি এসছে, হসেছে বড় হয়ছে! কথা ছিল তুমি এলে বাংলাদশেরে পরতে পরতে দূর হবে লাঞ্ছনা নিপীড়িত জনতার মুখে ফুটবে হাসি থাকবেনা মহামারী র্দুর্ভিক্ষ, ত্রাস আর হত্যা। তোমার যৌবনের প্রায় শেষ এখনও ফুটপাতে রাত্রিযাপন করে লাখ মানুষ অর্ধাহারে অনাহারে দিন কাটায় অগণিত প্রাণ নিত্য খালি হয় অসংখ্য মায়ের কোল ক্ষুধার তাড়নায় শরীর বিক্রি করে লাখ বোন। তুমি কথা রাখনি স্বাধীনতা তুমি মিথ্যেবাদী! স্বপ্ন ছিল তুমি এলে থাকবনো রাজনীতির হানাহানি র্দুনীতি আর সন্ত্রাস জীবনযাত্রার অনশ্চিয়তা আর এখন- রাজনীতরি কাদা ছোড়াছুড়িতে দেশ কালিমালিপ্ত র্দুনীতি আর সন্ত্রাসে বিপর্যস্ত সবকিছু ঘর হতে বের হবার সময় শঙ্কা থাকে নিরাপদে ফেরার। তুমি র্ব্যথ স্বাধীনতা,তুমি কাপুরুষ! তোমার অনুপ্ররেণায় সমস্ত বাংলাদেশী হবে এক ছিন্নমূলেরা পাবে ঠাই,বেকাররা র্কমসংস্থান মুক্তযোদ্ধারা পাবে র্মযাদা প্রাপ্য অথচ তোমার নাম ভাঙিয়ে দেশকে আজ বিভক্ত করে রেখেছে ফ্যাসিবাদীরা ছিন্নমূলেরা আরও বিচ্ছিন্ন হয়েছে বেকাররা বাধ্য হয়েছে অপরাধের জালে জড়াতে। আর পৈতৃক স্বাধীনতার দাবিদাররা নির্ণয় করে দিচ্ছে মুক্তযোদ্ধাদের আসল নকল! আর তোমার জন্য যারা লড়ছেলি তারা এখন কামলা দেয়.রিকসা চালায় মজুরী খাটে তোমার লজ্জা করনো স্বাধীনতা? এতই কি ইতর নর্লিজ্জ তুমি? তোমার নামে মঞ্চ কাপায় দেশবিক্রির দালাল সুশীলেরা দেশপ্রেমিকেরা থাকে নগিৃহীত তুমি কিছুই করতে পারনা স্বাধীনতা তুমি পঙ্গু শক্তহিীন! তোমায় সুসংহতের কথা বলে র্স্বাথলোভী শকুনেরা ট্রানজিটের জয়গান করে তুমি তোমার আসন্ন মৃত্যুর ভয়ে একটু কেদেও ওঠনা, এতই অপর্দাথ ভীতু তুমি! তোমার ঘাড়ে মাথা রেখে পরজীবী বুদ্ধজীবীরা লেখে ইতিহাস বদলে দেয় স্বাধীনতার ঘোষণাপত্র অতীতরে িদনিলিপি। তুমি পারনা পপ্রতিবাদ করতে অস্বীকার করতে এতই মুক,বধির তুমি স্বাধীনতা! তাই আমি আমরা আর তোমার পক্ষে নই আমরা এখন তোমার বিরোধী! আমরা তোমায় ভেঙে তোমার সিংহাসনে নতুন এক রাজা,স্বাধীনতা আনব। যে স্বাধীনতা মিথ্যাবাদী,ভীরু কাপুরুষ নয় যে স্বাধীনতা লজ্জা পায়,দায়বোধ আছে আছে শক্তি আর প্রতিবাদের ভাষা। আমরা তার খোজ করছি। তুমি আমাদরে শুভকামনা জানিও স্বাধীনতা। ঢাকা, ২০.০৩.২০১০